ম্যাজিস্ট্রেট থেকে শীর্ষ কর্মকর্তা সেজে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন পারভিন

কখনো ম্যাজিস্ট্রেট, কখনো ভোক্তা অধিকার সংস্থার সহকারী পরিচালক, আবার কখনো সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তা। এভাবে নানা ভুয়া পরিচয়ে চট্টগ্রামের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন পারভিন আকতার নামে এক প্রতারক। তবে শেষ রক্ষা হয়নি তার। অবশেষে র‌্যাবের হাতে আটক হওয়ার পর বের হয়ে আসছে পারভিন আকতারের নানা অপকর্ম।

র‍্যাবের তথ্য মতে, গত এক দশক নানা পরিচয়ে নগরী ও জেলা চষে বেড়িয়েছে পারভীন আকতার। মাইক্রোবাসে স্টিকার লাগিয়ে সাঙ্গ-পাঙ্গদের নিয়ে নকল ভ্রাম্যমাণ আদালতও পরিচালনা করতেন তিনি। সম্প্রতি তার পক্ষ থেকে সাড়ে ৬ কোটি টাকার একটি প্রকল্প জমা দেয়া হয়েছিল সরকারের কাছে। আর এভাবেই প্রতারণার জাল বিস্তৃত করেছিল সাধারণ মানুষের মধ্যে। আর এভাবেই হাতিয়ে নিয়েছে লাখ লাখ টাকা।

স্বীকৃতি নামে একটি সংস্থা খুলে শত শত গ্রাহকের প্রত্যেকের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা করে আদায় করেছে পারভীন। বছরের পর বছর পার জামানত ফেরত পায়নি গ্রাহকরা।

অভিযোগের পর অভিযোগ জমছিল র‍্যাবের কাছে। শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে আটক করা হয় অভিযুক্ত পারভীন আক্তারকে। উদ্ধার করা প্রতারণার নানা উপকরণ। ১৩টি ব্যাংকের চেক বই পাওয়া গেছে পারভীন আকতারের আস্তানায়।

র‍্যাব কর্মকর্তা মো. তারেক বলেন, বিভিন্ন কল্পিত প্রকল্প দেখিয়ে সরকারের কাছ থেকে অনুদানের চেষ্টা করত।

অভিযুক্ত পারভীন আকতারের বিরুদ্ধে নগরীর বিভিন্ন থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছে র‍্যাবের আটকের পর পারভীন আকতারের বিরুদ্ধে পাহাড়তলী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

About Mokaddes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *