ম্যাচ জয়ের খুশিতে এ কি বললেন প্রীতি

গতকাল আইপিএল এ নিজেদের দ্বিতীয় জয় তুলে এনেছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। এবং এই দুটি জয়ই এসেছে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে।

গতকাল ৮ উইকেটে জয় পেয়ে এখনও টুর্নামেন্টে টিকে রয়েছে পাঞ্জাব। আর এর কৃতিত্ব যায় গতকালের কে এল রাহুল ও ক্রিস গেইলের দুরন্ত অর্ধ শতরানের ইনিংসের জন্য। যার জেরে ১৭২ রানের লক্ষ্য তুলে নেয় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

যদিও গতকালের ম্যাচটি শেষ বল অবধি গিয়েছে, কিন্তু অতদুর অবধিও যাওয়ার কথা ছিল না। যেভাবে শুরুতে দুরন্ত ব্যাটিং করেছেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল এবং প্রভাব নিয়ে বাকি ইনিংস ব্যাট করেছেন কে এল রাহুল এবং ক্রিস গেইল, তাতে অনেক আগেই ম্যাচ জেতা উচিত ছিল।

কিন্তু শেষ মুহুর্তে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বোলাররা বেশ ভালো বোলিং করেন। ১৮ নম্বর ওভারে ক্রিস মরিস এবং ১৯ নম্বর ওভারে ইসিরু উদানা অত্যন্ত ভালো ডেথ ওভার বোলিং করেন।

পাশাপাশি শেষ ওভারে দুই রান বার করতে পাঞ্জাবের নাভিশ্বাস তুলে দিয়েছিলেন যুজবেন্দ্র চাহাল। রান নিতে গিয়ে রান আউট হন ক্রিস গেইল। শেষ বলে চাহালের ফুলটস বলে নিকোলাস পুরান কোনওরকমে ছয় মেরে ম্যাচ জেতান।

আর এই নিয়ে শোরগোল পড়ে যায় ক্রিকেট মহলে। সহজে জেতার ম্যাচকে এভাবে থ্রিলারে কিভাবে নিয়ে গেল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব, তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

কিন্তু এবার নিজের দলকে নিয়েই খিল্লি ওড়ালেন সহ মালকিন প্রীতি জিন্টা। প্রতিটি ম্যাচেই দলের সাথে থাকেন বলিউডের এই অভিনেত্রী। স্ট্যান্ডে থেকে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের জন্য প্রতি বছরই তিনি উৎসাহ যোগান, এবং এই বছরেও তার অন্যথা হয়নি। নিজের দলকে নিয়ে অত্যন্ত পরিশ্রম করেন প্রীতি।

আর এবার একটি সহজ ম্যাচকে এভাবে কঠিন করার জন্য নিজের দলকে নিয়েই মজা ওড়ালেন প্রীতি জিন্টা। নিজের দলের প্রতি জয় নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন টুইটারে।

পাশাপাশি ক্রিকেটপ্রেমীদের নিজের দলকে নিয়ে সাবধান বার্তাও দেন প্রীতি। সবশেষে শেষ মুহুর্ত অবধি রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের লড়াইয়ের প্রশংসা করেন প্রীতি। নিজের টুইটারে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের জয়ের পর প্রীতি লিখেছেন,

“শেষ অবধি একটা প্রয়োজনীয় জয় এল আমাদের জন্য। আশা করি আমার দল ক্রিকেটের নামে মানুষকে আর হার্ট অ্যাটাক দেবে না। যদিও একটি সাবধান বার্তা দিয়ে দিলাম, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের খেলা কিন্তু দূর্বল হৃদয়ের মানুষদের জন্য নয়। আমি সত্যিই প্রশংসা করব যেভাবে শেষের দিকে ফিরে আসার লড়াই দেখিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বোলাররা।”

এখনও অবধি আটটি ম্যাচের মধ্যে মাত্র দুটি ম্যাচে জিতেছে তারা। এর ফলে বাকি ছয়টি ম্যাচে তাদের সব কটি জিততেই হবে, তবে তারা পৌঁছবে ১৬ পয়েন্টে, যা গত কয়েক মরশুমের আইপিএল এর প্লেঅফসে ওঠার জন্য যথেষ্ট ছিল।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *