১০ বছরের ভালোবাসা ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিতে অনশনে প্রে’মিক

১০ বছরের ভালোবাসা ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিতে অনশনে প্রে’মি-হারানো প্রে’ম ফিরে পেতে দৃ’ষ্টান্ত স্থাপন ক’রেছেন ভারতের ১০ বছরের ভালোবাসা ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিতে অনশনে প্রে’মি-হারানো প্রে’ম ফিরে পেতে দৃ’ষ্টান্ত স্থাপন ক’রেছেন পশ্চিমবঙ্গের এক যুবক। বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) ওই যুবক দুটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে তারই কথিত প্রে’মিকার বাড়ির সামনে একেবারে অ’নশন শুরু করে দিয়েছেন।

প্ল্যাকার্ডে শিরোনাম করা হয়েছে ‘ফিরিয়ে দাও ১০ বছরের ভালোবাসা’। হারানো দশ বছরের বিভিন্ন সময়ের বেশ কিছু ঘ’নিষ্ঠ মু’হূর্ত-এর ছবিও লাগানো রয়েছে প্ল্যা’কার্ড-এ। ২৮ বছর বয়সের এই যু’বকের এমন প্রতিবাদ দেখতে শুধু এ’লাকার মানুষই নন, সেখানে খবর করতে ছুটে গেছেন

সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরাও। অভিনব প্রতিবাদকারী প্রেমিক সোমনাথ জানালেন, তার দশ বছরের প্রেমের কথা। তবে মাস তিনেক ধরে সেই সম্পর্ক নেই। কিছু ঘটনার কারণে সোমনাথের কাছ থেকে দূরে গিয়েছেন তার প্রে’মিকা। হাত ধরেছেন অন্য এক যু’বকের। তার আরও অভিযোগ, ওই মেয়েটির

পরিবারেরও সম্মতি ছিল তাদের স’ম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়ানোর। কিন্তু মেয়েটির পরিবারও এখন বেঁকে বসেছে। তাই তার এই প্রতিবাদ। যদিও এই ঘট’নায় কথিত প্রে’মিকার কিংবা তার পরিবারের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। দুপুরের পর থেকে আর বাড়ির বাইরে বের হননি প্রে’মিকার পরিবারের

কেউ। এর আগে বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) দুপুর ১টায় হঠাৎই অশোকনগর এলাকার ওই মেয়েটির বাড়ির সামনে অনশনে বসে যান সোমনাথ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত (রাত সাড়ে ১১টা) তিনি সেখানে রয়েছেন। তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বিদ্যুৎ কাঞ্জিলাল জানালেন, এক যুবক এইভাবে তার হা’রানো স’ম্পর্ক

ফিরে পাওয়ার জন্য আমার এলাকায় অ’নশনে বসেছেন, সেটা শুনে ঘটনাস্থলে গেছেন। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে তারও কিছু করার নেই। প্রসঙ্গত, প্রায় দেড় বছর আগে এই অশোকনগর এলাকায় এক বৃ’দ্ধ-বাবাকে চড় মেরে আলোচনায় এসেছিলেন এক যুবক। বৃদ্ধ বাবা লুকিয়ে তারই স্ত্রীকে মিষ্টি খাইয়েছিলেন

বলে ছেলের হাতে চড় খেতে হয়েছিল তাকে আর সেই দৃশ্য অন্য বাড়ির ছাদ থেকে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দিলে মুহূর্তই ভাইরাল হয় ভিডিওটি। পুরো ঘটনা দেখে অনেকেই প্রশ্ন তুলে বলছেন, ভা’লোবাসা আসলে কী? বিশ্বাস-আস্থা নাকি নিছক চোখের ভা’লোলাগা। তিল-তিল করে যখন একটি স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে;

ভা’ঙতে কি খুব সময় লাগে। যদি সত্যিই স’মর্পকটা কোনো কারণে ভেঙে-ই যায় তবে কী সেই স’ম্পর্ক জোড়া লাগে। তাও এইভাবে, একেবারে প্রতিবাদ করে অ’নশনে বসে। ভেঙে যাওয়া স’ম্পর্ক বা সেই ভালোবাসার সু-সময় ফেরানো যায় কি? তবুও এইভাবে। তবে, এটা মানছেন অনেকেই যে, ১০ বছরের প্রে’ম ফিরে পেতে এই যুবকের এমন অ’নশনের ঘটনা; সত্যি প্রতিবাদের নতুন একটা পালক যুক্ত করল বৈকি। রাজ্যের এক যুবক। বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) ওই যুবক দুটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে তারই কথিত প্রে’মিকার বাড়ির সামনে একেবারে অ’নশন শুরু করে দিয়েছেন।

প্ল্যাকার্ডে শিরোনাম করা হয়েছে ‘ফিরিয়ে দাও ১০ বছরের ভালোবাসা’। হারানো দশ বছরের বিভিন্ন সময়ের বেশ কিছু ঘ’নিষ্ঠ মু’হূর্ত-এর ছবিও লাগানো রয়েছে প্ল্যা’কার্ড-এ। ২৮ বছর বয়সের এই যু’বকের এমন প্রতিবাদ দেখতে শুধু এ’লাকার মানুষই নন, সেখানে খবর করতে ছুটে গেছেন

সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরাও। অভিনব প্রতিবাদকারী প্রেমিক সোমনাথ জানালেন, তার দশ বছরের প্রেমের কথা। তবে মাস তিনেক ধরে সেই সম্পর্ক নেই। কিছু ঘটনার কারণে সোমনাথের কাছ থেকে দূরে গিয়েছেন তার প্রে’মিকা। হাত ধরেছেন অন্য এক যু’বকের। তার আরও অভিযোগ, ওই মেয়েটির

পরিবারেরও সম্মতি ছিল তাদের স’ম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়ানোর। কিন্তু মেয়েটির পরিবারও এখন বেঁকে বসেছে। তাই তার এই প্রতিবাদ। যদিও এই ঘট’নায় কথিত প্রে’মিকার কিংবা তার পরিবারের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। দুপুরের পর থেকে আর বাড়ির বাইরে বের হননি প্রে’মিকার পরিবারের

কেউ। এর আগে বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) দুপুর ১টায় হঠাৎই অশোকনগর এলাকার ওই মেয়েটির বাড়ির সামনে অনশনে বসে যান সোমনাথ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত (রাত সাড়ে ১১টা) তিনি সেখানে রয়েছেন। তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বিদ্যুৎ কাঞ্জিলাল জানালেন, এক যুবক এইভাবে তার হা’রানো স’ম্পর্ক

ফিরে পাওয়ার জন্য আমার এলাকায় অ’নশনে বসেছেন, সেটা শুনে ঘটনাস্থলে গেছেন। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে তারও কিছু করার নেই। প্রসঙ্গত, প্রায় দেড় বছর আগে এই অশোকনগর এলাকায় এক বৃ’দ্ধ-বাবাকে চড় মেরে আলোচনায় এসেছিলেন এক যুবক। বৃদ্ধ বাবা লুকিয়ে তারই স্ত্রীকে মিষ্টি খাইয়েছিলেন

বলে ছেলের হাতে চড় খেতে হয়েছিল তাকে আর সেই দৃশ্য অন্য বাড়ির ছাদ থেকে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দিলে মুহূর্তই ভাইরাল হয় ভিডিওটি। পুরো ঘটনা দেখে অনেকেই প্রশ্ন তুলে বলছেন, ভা’লোবাসা আসলে কী? বিশ্বাস-আস্থা নাকি নিছক চোখের ভা’লোলাগা। তিল-তিল করে যখন একটি স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে;

ভা’ঙতে কি খুব সময় লাগে। যদি সত্যিই স’মর্পকটা কোনো কারণে ভেঙে-ই যায় তবে কী সেই স’ম্পর্ক জোড়া লাগে। তাও এইভাবে, একেবারে প্রতিবাদ করে অ’নশনে বসে। ভেঙে যাওয়া স’ম্পর্ক বা সেই ভালোবাসার সু-সময় ফেরানো যায় কি? তবুও এইভাবে। তবে, এটা মানছেন অনেকেই যে, ১০ বছরের প্রে’ম ফিরে পেতে এই যুবকের এমন অ’নশনের ঘটনা; সত্যি প্রতিবাদের নতুন একটা পালক যুক্ত করল বৈকি।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *