দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা আর ৯৮.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট নেই!

শরীরে তাপমাত্রা একটু বাড়লে প্রথমেই হাতে নেই থার্মোমিটার। কিন্তু যদি দেখা যায় ৯৮.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট। তাহলে আমরা এ নিয়ে আর মাথাঘামাই না। জ্বর কিংবা শরীরের তাপমাত্রা যদি ৯৮.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট হয় তখন তাকে স্বাভাবিক বলেই ধরে নেই। কিন্তু এখন তা অস্বাভাবিক! কারণ দেহের তাপমাত্রা নামতে শুরু করেছে।

আমাদের দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রার পারদ উত্তরোত্তর নামতে শুরু করেছে। ব্যাপারটা বেশ উদ্বেগজনক। কেননা উষ্ণতা জীবনের মানদণ্ড আর শীতলতা মৃত্যুর পরিচায়ক।

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘স্কুল অফ মেডিসিন’-এর সাম্প্রতিক গবেষণা জানিয়েছে, ১৬০ বছর বা তার কিছুটা বেশি সময় আগে আমাদের দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা যা ছিল তার উষ্ণতা আমরা ধরে রাখতে পারিনি। দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা কমে গেছে ০.০৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ০.২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পুরুষ এবং মহিলা উভয়ের ক্ষেত্রেই তাপমাত্রা নেমেছে বলছেন গবেষকরা।

এই গবেষকরা বলেছেন, স্বাভাবিক তাপমাত্রা আর আগের মত নয় এখন পুরুষদের ক্ষেত্রে ধরতে হবে ৯৭.৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট। পুরুষদের সঙ্গে সঙ্গে কমেছে মহিলাদের দেহের তাপমাত্রাও। তবে সেই হার পুরুষের তুলনায় সামান্য কম। মহিলাদের শরীরের গড় স্বাভাবিক তাপমাত্রা এখন ৯৮ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনের অধ্যাপক জুলে পার্সনেট এবং তাঁর দল ১৯০ হাজার মানুষের ওপর পরীক্ষা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাঁদের মতে, তাপমাত্রা কমে যাওয়ার কারণ হতে পারে মানুষের ওজন, জীবনযাত্রার অভ্যাস এবং উন্নত চিকিৎসা।

এছাড়া এই গবেষণা থেকে আরও জানা গেছে আমাদের দেহের গড় স্বাভাবিক তাপমাত্রার এই অবনমন হঠাৎই হয়নি। তা ধাপে ধাপে নেমেছে। মানুষের জন্ম-সময়ের নিরিখে একটি দশক থেকে পরবর্তী দশকে, ধারাবাহিক ভাবে। সেই ধারাবাহিকতায় কোনও ব্যাতিক্রম ঘটতে দেখেননি গবেষকরা।

শরীরের তাপমাত্রা সবার জন্য এক নয়। লিঙ্গ, বয়স এবং অন্যান্য কারণের ভিত্তিতে পরিবর্তিত হয়। সাধারণ প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য শরীরের তাপমাত্রা ৯৭ ডিগ্রি থেকে ৯৯ ডিগ্রি ফারেনহাইটের মধ্যে থাকতে পারে। আবার শিশুদের ক্ষেত্রে ৯৭.৯ থেকে ১০০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

১৮৫১ সালে দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা কত জানতে ২৫ হাজার লোকের তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। তারপর তার গড় কষে তখন বলা হয়েছিল, ৯৮.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট আমাদের দেহের গড় স্বাভাবিক তাপমাত্রা। তবে সামান্য কিছু বেশি হতে পারে, আবার ততটাই সামান্য কমও হতে পারে। কিন্তু দুটিকে যোগ করে দুই দিয়ে ভাগ করলে তার মান হবেই হবে ৯৮.৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

২০২০ সালে এসে সেই পুরনো হিসাব এখন আর চলবে না। বর্তমানে পুরুষদের ক্ষেত্রে ৯৭.৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট আর মহিলাদের ক্ষেত্রে ৯৮ ডিগ্রি ফারেনহাইট মানতে হবে।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *