দেশের জনগণ নতুন দিন সূচনা করেছে: কমলা হ্যারিস

ইতিহাস গড়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ ও নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন কমলা হ্যারিস। বিজয়ের পর প্রথম ভাষণে তিনি সবচেয়ে বেশি নারীদের প্রতিই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, বিজয়ের এই মুহূর্তের পথ সুগম করেছেন আপনারা। কৃষ্ণাঙ্গ নারীদের কথা তুলে ধরে তিনি বলেছেন, তারা আমাদের গণতন্ত্রের মেরুদণ্ড।

নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের ডেলাওয়ার অঙ্গরাজ্যের উইলমিংটন থেকে দেওয়া ভাষণে এ কথা বলেন কমলা হ্যারিস। নতুন নেতা নির্বাচনের মাধ্যমে তার দেশের জনগণ নতুন দিনের সূচনা করেছে বলেও ভাষণে বলেছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত এ রানিংমেট।

কমলা হ্যারিস কৃষ্ণাঙ্গ এবং দক্ষিণ এশীয়। উইলমিংটনে মঞ্চ থেকে বলেছেন, নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রথমবারের মতো একজন নারীকে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে বেছে নেওয়ার ‘সাহস’ করার জন্য কৃতিত্বের অধিকারী। জো বাইডেনকে একজন লড়াকু ও অভিজ্ঞ রাজনীতিক হিসেবে উল্লেখ করেছেন কমলা।

তিনি ভুক্তভোগীদের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য সাদা পোশাক পরে মঞ্চে এসেছিলেন। তার পদে তিনি প্রথম নারী হতে পারেন, কিন্তু তিনি শেষ নারী নন বলে মন্তব্য করেন কমলা।

কমলা হ্যারিসের কথাগুলো যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে কৃষ্ণাঙ্গ নারীদের আপ্লুত করেছিল। তারা কমলার জয় উদযাপনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন। রাস্তায় বা পার্কগুলোতে এমনকি বাড়িতে কোনো টেলিভিশনের সামনে বসে জয় উদযাপন করছিলেন তারা।

কমলা হ্যারিস বলেন, গণতন্ত্র যখন ঝুঁকিতে, তখন ব্যালটের মাধ্যমে মার্কিন জনগণ দেশের জন্য নতুন দিনের সূচনা করেছে। আমাদের দেশ যারা সুন্দরভাবে গড়ে তুলেছেন, সেই আমেরিকানদের ধন্যবাদ জানাই।

তিনি বলেন, জানি সময়টা চ্যালেঞ্জিং। বিশেষ করে গত কয়েক মাস। দুঃখ, কষ্ট, বেদনা, উদ্বেগ ও সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে। আমরা আপনাদের ধৈর্য, সাহস, সহনশীলতা ও সহানুভূতি দেখেছি।

নতুন ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন, ইতিহাসের এই গুরুত্বপূর্ণ সময়টির জন্য আমি খুবই গর্বিত। একজন কৃষ্ণাঙ্গ নারী হতে পেরেও আমি গর্বিত।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *