৫টি প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও খনিজ

দ্রুত বিপাক আমাদের জন্য আশীর্বাদ। এর ফলে স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখা সহজ হয়। একটি ভালো বিপাক শরীরে দ্রুত ক্যালোরি বার্ন করতে সাহায্য করে এবং ওজন বৃদ্ধি রোধ করে। তবে প্রাকৃতিকভাবে দ্রুত বিপাক পাওয়ার মতো সৌভাগ্য সবার হয় না। যাদের বিপাক ধীরে হয় তাদের ওজন দ্রুত বাড়ে, এমনকী ক্যালোরি ঝরানোও কঠিন হয়। ভাগ্যক্রমে, এমন কিছু খাবার রয়েছে যা বিপাক বাড়াতে এবং ওজন হ্রাস প্রক্রিয়াটি গতিশীল করতে সহায়তা করে। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিদিনের ডায়েটে যোগ করতে হবে কিছু ভিটামিন ও খনিজ। বিস্তারিত প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

ভিটামিন বি: ভিটামিন বি নিশ্চিত করে যে আপনার খাওয়া সমস্ত খাবার শক্তি উৎপাদন করে এবং চর্বি হিসাবে এটি শরীরে জমা হয় না। ফ্যাট, কার্বস বা প্রোটিন যা-ই হোক না কেন, এই পুষ্টিগুণ সব ধরণের খাবার বিপাক করতে সহায়তা করতে পারে। এই পুষ্টির ঘাটতি প্রায়শই বিপাককে ব্যহত করে এবং ওজন বাড়িয়ে তোলে। চর্বিযুক্ত মাংস, দুধ, আস্ত শস্য, কলা, আপেল এবং পালংশাক ভিটামিন বি এর কিছু উৎস।

ম্যাগনেসিয়াম: ম্যাগনেসিয়ামের অভাবে, আমাদের বিপাক এবং শক্তি উৎপাদন প্রক্রিয়া ধীর হয়ে যায়। এগুলো ছাড়াও ৩০০টিরও বেশি এনজাইমেটিক প্রতিক্রিয়ার জন্য ম্যাগনেসিয়াম প্রয়োজন যা মস্তিষ্কের কার্যকারিতা সমর্থন করে এবং পেশীগুলোকে শিথিল করতে সহায়তা করে। ম্যাগনেসিয়ামের সাধারণ উৎস হলো আলু, বাদাম এবং বীজ এবং লেবু।

আয়রন: বিপাক বাড়ানোর প্রসঙ্গ এলে প্রয়োজন পড়ে এই পুষ্টির। রক্তে আয়রনের স্তর কম হওয়ার অর্থ হলো, পেশীগুলোতে অক্সিজেন চলাচল কম হবে। এটি স্বাস্থ্যকর বৃদ্ধি, বিকাশ এবং বিপাক জোরদারকরণের জন্য প্রয়োজনীয় একটি প্রয়োজনীয় পুষ্টি। আয়রনের কয়েকটি সাধারণ উৎস হলো বাদাম, মাছ, মাংস এবং সয়াবিন।

ক্যালসিয়াম: বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে যে ক্যালসিয়াম রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে এবং বিপাক বিকাশে সহায়তা করতে পারে। এটি যুক্তিযুক্ত যে পুষ্টিকর শরীরের মূল তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি করতে পারে, যা থার্মোজেনেসিস এফেক্ট হিসাবে পরিচিত। এটি বিপাক বৃদ্ধি করতে এবং আমাদের দেহকে মেদ পোড়াতে সহায়তা করতে পারে। আপনি যদি ক্যালসিয়াম গ্রহণ বাড়িয়ে নিতে চান তবে দুগ্ধজাত পণ্য, বাদাম এবং বীজ আপনার ডায়েটের অংশ হওয়া উচিত।

ভিটামিন সি: ভিটামিন সি আরেকটি দুর্দান্ত মেজাজ এবং বিপাক-বর্ধনকারী পুষ্টি। কিছু গবেষণা অনুসারে, ভিটামিন সি অক্সিডেটিভ স্ট্রেস মোকাবেলায় সহায়তা করতে পারে যা দেহের বিপাকীয় হারকে ধীর করে দেয়। টমেটো, কমলা এবং লেবু ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবারের কিছু সাধারণ উৎস।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *