হৃদপিণ্ডের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে দারুন কাজ করে। টকদইয়ের অসাধারণ ১০ টি উপকারিতা

প্রতি দিনের খাদ্য তালিকায় কিছু খাওয়ার রাখা উচিৎ। বিশেষ করে যা শরীরের একাধিক কাজে লাগে, পাশা পাশি হজম শক্তি বাড়ানোর মতো কাজ করে। টক দই। এমন এক মিষ্টান্ন যা শরীরের একাধিক কাজ করতে সাহায্য করে। যে ১০ টি কারণে টক দই রাখা উচিত প্রতি দিনের খাদ্য তালিকায়ঃ

১) টক দই হজমে সাহায্য করে। টক দইয়ের এনজাইম বদ হজম প্রতিরোধে সহায়তা করে।

২) টক দইয়ে ফ্যাট কম থাকে, এতে রক্তের ক্ষতিকর কোলেস্টেরল ‘এলডিএল’ কমাতে সহায়তা করে।

৩) টক দই রক্ত পরিশোধন করতে সাহায্য করে।

৪) টক দইয়ের ল্যাকটিক অ্যাসিড কোষ্ঠ কাঠিন্য দূর করে এবং কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

৫) যারা উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভোগেন তারাও এই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন নিয়মিত টক দই খাওয়ার মাধ্যমে। নিয়মিত টক দই খেয়ে রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারা যায়।

৬) টক দইয়ের ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ‘ডি’ আমাদের হাঁড় ও দাঁতের গঠন মজবুত করতে এবং হাড় ও দাঁতের সমস্যা জনিত রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

৭) টক দই দেহে ক্ষতিকর টক্সিন জমতে বাধা দেয় এবং অন্ত্রনালী পরিষ্কার রেখে শরীরকে সুস্থ রাখে এবং ত্বকে বা দেহে বয়েসের ছাপ পরতে দেয়না। শরীরে টক্সিন কমার কারণে ত্বকের সৌন্দর্যও বৃদ্ধি পায়।

৮) টক দইয়ের আমিষ দুধের চাইতে সহজে ও কম সময়ে হজম হয়ে যায়। এর যাদের দুধের হজমে সমস্যা অর্থাৎ যাদের ল্যাক্টোজেন ইন্টলারেন্সের সমস্যা রয়েছে তারা দুধের পরিবর্তে অনায়েসে টকদই খেতে পারেন।

৯) নিয়মিত টক দই খেলে ডায়বেটিস ও হৃদপিণ্ডের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় খুব সহজেই।

১০) যারা ওজন কমাতে চান তারা নিজেদের ডায়েট প্ল্যানে যোগ করে নিতে পারেন কম ফ্যাটযুক্ত এই টকদই। চটজলদি ওজন কমাতে এর জুড়ি মেলা ভার।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *