বাচ্চাদের ওজন বৃদ্ধিতে সহায়ক পাঁচটি খাবারের নাম জেনে নিন

বাড়িতে ছোট বাচ্চা থাকলে মায়েদের চিন্তা থাকে সবসময়। তাদের কখন কি খাওয়াবে তা নিয়ে দুশ্চিন্তার শেষ নেই। তারপর তো রয়েছে কি খেলে বাচ্চা শারীরিক বৃদ্ধি ঘটবে। এমন অনেক বাচ্চাকে আমরা দেখি যারা খাওয়ার পর্যাপ্ত পরিমাণে খেলেও শারীরিক বিকাশ ঘটে না। তাই মেয়েদের মাথায় রাখতে হবে কি খাওয়ালে বাচ্চারা বেড়ে উঠবে তাড়াতাড়ি। পুষ্টিকর, শরীরের বৃদ্ধির জন্য কি কি খাওয়া উচিত তারই একটি চাট রইলো আপনাদের জন্য।

১)এই খাবারের চার্ট এর প্রথমেই জায়গা দখল করে কলা। প্রচুর উপকারী একটি ফল। কোন চিন্তাভাবনা না করে একটি বাচ্চাকে খাওয়ানো যেতে পারে। কলাতে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে ফাইবার, পটাশিয়াম, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি৬। কলা শিশুর শরীরের পুষ্টির চাহিদা আছে তা মেটায় এবং বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। দুধ এবং কলা একসাথে মিশিয়ে মিল্কশেক তৈরি করে বাচ্চাকে খাওয়াতে পারেন যদি আপনার বাচ্চা কলা খেতে পছন্দ না করে।

২) আপনি যদি দেখেন আপনার বাচ্চা খুবই রোগা, এবং বেশি ওজন হচ্ছে না, তখন তার ওজন বৃদ্ধির জন্য আপনি তার খাবারে প্রতিদিন রাখতে পারেন আলু। আলুতে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট থাকে। এবং আলুতে যে অ্যামিনো এসিড থাকে তা ওজন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

৩) শিশুর ওজন বৃদ্ধিতে আরো এক সহায়ক খাবার হলো ডিম । প্রতি ১০০ গ্রাম ডিমে ১৪ গ্রাম প্রোটিন থাকে। একটি টিম শিশুর শরীরে প্রোটিন ,ভিটামিন ,মিনারেল এর চাহিদা একসাথে পূরণ করবে।

৪) শিশুদের প্রধান খাদ্য দুধ। তাদের ওজন বৃদ্ধিতে ও প্রধান দুধ। প্রাকৃতিক প্রোটিন এবং কার্বোহাইড্রেট থাকে দুধের মধ্যে। প্রতিদিন দু গ্লাস করে দুধ খাওয়ানোর চেষ্টা করুন বাচ্চাকে। দুধের সর ও ক্রীম মিশিয়ে খাওয়াতে পারেন।

৫) মুরগির মাংস কেউ প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন আছে। ওজন বৃদ্ধিতে মুরগির মাংস সাহায্য করে। কিন্তু প্রতিদিন মুরগির মাংস খাওয়া উচিত নয়। মাছের ঝোলের সঙ্গে অল্টারনেটিভ করে মুরগির মাংস খাওয়ানো যেতে পারে।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *