ক্যান্সার থেকে রক্ষা পেতে বাদ দিতে হবে যে ৭ খাবার

টিভির পর্দায় চোখ রাখলেই দেখতে পাবেন ক্যান্সার থেকে দূরে থাকার জন্য লম্বা খাবারের তালিকা। শাক-সবজি, ফল-মূল সবই প্রায় সেই তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। তাহলে খাবেন কী? স্বাভাবিকভাবেই সাধারণ মানুষের আতঙ্ক বাড়ে। কী খেলে সুস্থ থাকা যাবে, তা ঠিক করেই উঠতে পারেন না। নাহ, ভয় পাওয়ার কিছু নেই। দৈনন্দিন জীবনে যা যা খাচ্ছেন, তাতেই সামান্য কাটছাঁট করে নিন। কিছু অস্বাস্থ্যকর খাবারকে তালিকা থেকে বাদ দিন। তাহলেই চলবে। রবিবার বিশ্ব ক্যানসার দিবসে জেনে নিন কী কী খাবার এড়িয়ে চললে মারণ কর্কট রোগ থেকে দূরে থাকা যাবে।

মাইক্রোওয়েভে তৈরি পপকর্ন :
এ খাবার খাওয়ার অভ্যেস অনেকেরই রয়েছে। টিভির পর্দায় চোখ রেখে অথবা সিনেমা হলে হাতে পপকর্ন থাকলে ভালই সময় কেটে যায়। আর মাইক্রোওয়েভে তা বানানোও বেশ সোজা। প্যাকেট কেটে টাইম অনুযায়ী মাইক্রোওয়েভ অন করে দিলেই হলো। তবে এই পপকর্ন দেখতে যতটা সুন্দর আর খেতে যতটা সুস্বাদু শরীরের পক্ষে এটি ততটাই ক্ষতিকর। এতে ফুসফুসে ক্যান্সারের আশঙ্কা বাড়ে। তবে অল্প তেলে গ্যাসে পপকর্ন বানিয়ে নিলে কোনও সমস্যা হবে না।

ক্যানের খাবার :
টিনের ক্যানে যেসব খাবার কিনতে পাওয়া যায় তা নিয়মিত খেলে ক্যান্সারের আশঙ্কা বাড়ে। টিনের পাত্রে বিসফেনল-এ বা বিপিএ থাকাতেই শরীর অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

রিফাইন্ড সুগার :
যদি ভেবে থাকেন ব্রাউন অথবা রিফাইন্ড সুগার কিউব বেশি স্বাস্থ্যকর, তাহলে ভুল করছেন। কারণ এতে সুন্দর রং ও গন্ধ আনার জন্য মেশানো হয় এক ধরনের গুড়। তাই রিফাইন্ড সুগার এড়িয়ে চলুন। বরং মধু অথবা বাজারে বিক্রি সাধারণ চিনি খেতেই পারেন।

কার্বোনেটেড নরম পানীয় :
দোকান থেকে ঠান্ডা পানীয় কিনে পান করার অভ্যেস অনেকেরই। কিন্তু খাবার তালিকা থেকে এটি বাদ রাখাই ভালো। এতে বেশি পরিমাণ কর্ন সিরাপ ও কেমিক্যাল থাকায় নরম পানীয় শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর। কার্বোনেটেড পানীয় দূরে রাখলে দূরে থাকবে ক্যান্সারও।

ডায়েট ফুড :
যে সব খাবারের প্যাকেটে ডায়েট শব্দটির উল্লেখ থাকে, তা দেখেই দুর্বল হয়ে পড়বেন না। তাকে স্বাস্থ্যকর ভাবারও কোনো কারণ নেই। সাধারণ খাবারের থেকেও অনেক সময় এই খাবার বেশি অস্বাস্থ্যকর হয়ে থাকে। শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করলেও এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও রয়েছে। যা ক্যান্সারের অন্যতম কারণ হতে পারে।

ভাজাভুজি খাবার :
চিপস আর স্ন্যাকসের প্যাকেটগুলো আপনাকে যেন চুম্বকের মতো টানে। নিজেকে সামলে নেয়াই ভালো। আসলে এসব খাবারের গোড়াতেই গলদ। বেশ অস্বাস্থ্যকরভাবেই এর প্রস্তুতি হয়। আর সেখানেই লুকিয়ে রোগ। তাই লোভ সংবরণই শ্রেয়।

তাই শুধুই ধূমপান ও মদ্যপান থেকে নিজেকে বিরত রাখলে চলবে না। ক্যান্সারের হাত থেকে বাঁচতে খাবারের অভ্যাসও অল্প-বিস্তর পালটাতে হবে।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন

About Sagor Ahamed Milon

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *