শিক্ষকের তোলা ছবি মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায়, নদিতে ভেসে উঠল ‘নৃত্য কালী’

দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে বৃষ্টি চলছে। জল বাড়ছে সমস্ত নদীতে। এমনই এক সময়ে জল থেকে ভেসে উঠলেন দেবী কালী। তাও নৃত্যরত। বলা যায় নৃত্য কালী। কোলাঘাটের বাসিন্দা স্কুল শিক্ষক শুভজিৎ সরকার সেই মূর্তি সহ প্রাপক ব্যক্তির একটি ছবি সোশ্যাল মাধ্যমে পোস্ট করেন। শিক্ষকের তোলা ছবি মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায়।

জানা গিয়েছে , বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার পর কোলাঘাট বাবুয়ার অন্তর্গত দেনান এলাকার চিতাশাল ল্যান্ড রেজিস্ট্রি অফিসের সামনে রূপনারায়ন নদের জোয়ারের জলে এলাকা প্লাবিত হয়ে যায়। জল রাস্তায় উঠে আনেক স্থানেই। স্হানীয় মহেশ্বর জানা নামে জনৈক ব্যক্তি ওই স্থানে প্রথমে একহাত ভাঙা অবস্থায় নটরাজ ভঙ্গিতে নৃত্যরতা দেবী কালীর একটি মুর্তি উদ্ধার করেন। পরে হাত দশেক দুরত্বে ক্রমে ভাঙা হাত ও মুকুট একে একে পাওয়া যায়।

শিক্ষক শুভজিৎ সরকার জানিয়েছেন ‘অমাবস্যা,ভারী নিম্নচাপ ও প্রবল বর্ষণে রূপনারায়ণ নদীর জল ভয়ঙ্কর ভাবে ফুলে উঠে আশেপাশের অনেক এলাকাই ভাসিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। রাস্তার ধারের সমস্ত দোকানপাট ও সব ঘরবাড়ি জলমগ্ন হয়ে পড়েছিল। এই বিপর্যয় শুধুই কোলাঘাটে নয়, রূপনারায়ণ নদীর তীরবর্তী সমস্ত এলাকাতেই হয়েছে। সেই রকমই কোনও এক এলাকার কোনও এক মন্দির অথবা কারও বাড়ী থেকে এই অনির্বচনীয় কাঠের মাতৃমূর্তিটি জোয়ারের জলে ভেসে আসে এবং কোলাঘাটের দেনান এলাকার সামন্তপাড়ার কিছু মানুষজন সেটি জল থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করেন। জলে ভেসে আসার সময় কোনও ভাবে মাতৃমূর্তির বামদিকের ওপরের হাতটি জখম হয় এবং পরে এলাকাবাসীর উদ্যোগেই তার আপাত মেরামতি করা হয়।’

জানা গিয়েছে, ‘গত মাস ছয়েক আগে নির্মিত শনিদেব ও কালী মাতার মন্দিরে দেবীর প্রাথমিক স্হাপন ও পূজাপাঠ সম্পন্ন হয় গতকাল। এরপর স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় খিচুড়ি ভোগেরও ব্যবস্থা করা হয়।’

এদিকে এমনই নৃত্য কালীর আরাধনায় প্রত্যেক বছর মাতে উত্তর কলকাতার বেনিয়াটোলা। করোনার জন্য এবার সেখানে শুধুই ঘট পুজো। পুজো কমিটির পক্ষে জানানো হয় , ‘বর্তমান পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আমরা এই বৎসর মাতৃ মূর্তি পূজা স্থগিত রাখতে বাধ্য হয়েছি এবং তত্সহ সমস্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। আমরা মায়ের ঘটে সমস্ত রীতি বজায় রেখে পূজা করতে চলেছি । আশা করি সুধী ভক্তগণ এবং পল্লীবাসীবৃন্দ আমাদের অসহায়তা অনুভব করবেন এবং সহযোগিতা করবেন।’

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *