৮ বছর পর মাঠে নেমেই যাদু দেখালো শ্রীশান্ত

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) কর্তৃক পাওয়া সাত বছরের নিষেধাজ্ঞা ভোগ করে অবশেষে মাঠে ফিরেছেন ডানহাতি পেসার শান্তকুমার শ্রীশান্ত।

দীর্ঘ ৮ বছর বা ২৮০৪ দিন পর খেলেছেন স্বীকৃত কোনো ক্রিকেট ম্যাচ। যেখানে উইকেটের তালিকায় নাম তুলতে মাত্র ৮ বল খরচ করেছেন ৩৭ বছর বয়সী এ পেসার।

ভারতের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফিতে কেরালার হয়ে খেলার সুযোগ পেয়েছেন শ্রীশান্ত। সোমবার টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই শ্রীশান্তকে একাদশে রেখেছে কেরালা। যার ফলে ৯ মে ২০১৩’র পর প্রথমবারের মতো স্বীকৃত ক্রিকেট খেলার সুযোগ পান শ্রীশান্ত।

২০১৩ সালের আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ের অপরাধে শ্রীশান্তকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল বিসিসিআই। পরে সেটি কমিয়ে আনা হয় ৭ বছরে।

যা কাটিয়ে গতবছর মাঠে ফেরার অনুমতি পান তিনি। তবে কোনো ঘরোয়া টুর্নামেন্ট না থাকায় মাঠে নামার উপলক্ষ্য পাচ্ছিলেন না শ্রীশান্ত। অবশেষে সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফিই এলো তার জন্য আশীর্বাদ হয়ে।

সোমবার এলিট গ্রুপ ই’র ম্যাচে পুরুচেরির বিপক্ষে খেলতে নেমেছিল শ্রীশান্তের কেরালা। যেখানে টস জিতে আগে ব্যাটিং করে পুরুচেরি।

ফলে শুরুতেই বোলিংয়ের সুযোগ আসে শ্রীশান্তের সামনে। প্রথম ওভার বাসিল থাম্পিকে দিয়ে করানোর পর, দ্বিতীয় ওভারেই শ্রীশান্তের হাতে বল তুলে দেন কেরালা অধিনায়ক সানজু স্যামসন।

দীর্ঘ ২৮০৪ দিন পর বোলিং করতে নেমে দ্বিতীয় বলেই বাউন্ডারি হজম করেন শ্রীশান্ত। শেষ বলে দেন আরও এক বাউন্ডারি।

মাঝে লেগবাই থেকে আসা আরেক বাউন্ডারিসহ সেই ওভারে মোট ১৩ রান পেয়ে যায় পুরুচেরি। প্রথম তিন ওভারে মোট ২৬ রান তুলে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দেন পুরুচেরির দুই ওপেনার।

তবে নিজের দ্বিতীয় ওভারেই প্রথম ওভারের শোধ তুলে নেন শ্রীশান্ত। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে ফের বল হাতে নিয়ে দ্বিতীয় বলেই সরাসরি বোল্ড করে দেন ডানহাতি ওপেনার ফাবিদ আহমেদকে।

কুড়ি ওভারের স্বীকৃত ক্রিকেটে এটি তার ৫২তম উইকেট। সবমিলিয়ে চার ওভারের স্পেলে ২৯ রান খরচায় এই একটি উইকেটই নেন শ্রীশান্ত।

নিজের বোলিং শেষ করে পিচকে প্রণাম করার মাধ্যমে সম্মান জানান তিনি। ম্যাচে আগে ব্যাট করা পুরুচেরি নিজেদের ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায়।

জবাবে মাত্র ৪ উইকেট হারিয়ে ১০ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় কেরালা। বুধবার মুম্বাইয়ের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে কেরালা।

About Mukshedul Hasan Obak

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *